জিরিয়ান সিরাপ ও ক্যাপসুলের কাজ কি খাওয়ার নিয়ম।

জিরিয়ান (Jiriyan) ক্যাপসুল এবং সিরাপ শুক্রমেহ, শুক্রতারল্য শয্যায় প্রস্রাব ও প্রস্রাবের জ্বালা-যন্ত্রনা ও অতিরিক্ত স্বপ্নদোষ এর ক্ষেত্রে কার্যকারী।

আজকের পোস্টটি খুব খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো যেমন জিরিয়ান সিরাপ এর কাজ কি, জিরিয়ান ক্যাপসুল এর কাজ কি, জিরিয়ান খাওয়ার নিয়ম, স্বপ্নদোষের আয়ুর্বেদিক ঔষধ
স্বপ্নদোষ বন্ধ করার ঔষধ এ , সম্পর্কে।

এটি ইবনে সিনা ইউনানী ডিভিশনের একটি পণ্য।




উপাদানঃ প্রতিটি ক্যাপসুলে সক্রিয় উপাদান হিসেবে রয়েছে-
  • সিংঘাড়া খুশুষ্ক (শুকনো পানিফল)
  • Trapa bispinosa: ৪০০ মিগ্রা
  • শীরে বরগদ (বটগাছের দুধ)
  • Ficus bengalensis ১০০ মিগ্রা



জিরিয়ান ক্যাপসুলের কাজ

  • শুক্রমেহ: জিরিয়ান ক্যাপসুল বীর্যে শুক্রাণুর সংখ্যা বৃদ্ধি করে
  • শুক্রতারল্য: এটি বীর্য ঘন করতে সাহায্য করে
  • অতিরিক্ত স্বপ্নদোষ: জিরিয়ান ক্যাপসুল অতিরিক্ত স্বপ্নদোষ বন্ধ করে।




জিরিয়ান ক্যাপসুল খাওয়ার নিয়ম

সেবনমাত্রা ও সেবনবিধি: ১-২ ক্যাপসুল দিনে ১-২ বার অথবা চিকিৎসকের পরামর্শ আনুযায়ী সেব্য।

আরো জানুনঃ ফর্সা হওয়ার ওষুধ সম্পর্কে

জিরিয়ান ক্যাপসুলের দাম

একটি জিরিয়ান (jiriyan) ক্যাপসুলের দাম ৫ টাকা
এক পাতা ক্যাপসুলের দাম ৫০ টাকা

জিরিয়ান সিরাপ এর কাজ

  • জিরিয়ান এমন একটি সিরাপ যা কামশক্তি বৃদ্ধি করার ক্ষমতা রাখে
  • এটি প্রস্রাবের প্রবাহ বাড়াতে সাহায্য করতে পারে রক্তচাপ কমাতে ব্যবহৃত হয় এবং ডিটক্সিফিকেশনের জন্য ভাল কাজ করে
  • এটি কিডনিতে পাথর তৈরির ঝুঁকি কমাতেও সাহায্য করে
  • এই জিরিয়ান সিরাপে রয়েছে কোকিলাক্ষা যা পুরুষ প্রজনন ব্যবস্থার সুস্থতার জন্যও কার্যকর
  • এটি ইমিউন সিস্টেমের উপর প্রভাব ফেলতে পারে এবং ইমিউন ফাংশন পরিবর্তন করতে সাহায্য করতে পারে
  • এই সিরাপে রয়েছে আজওয়াইন যা শরীরকে শক্তিশালী করতে এবং ব্যথা দূর করতে সাহায্য করে
  • এছাড়াও এটি শুক্রমেহ, অতিরিক্ত স্বপ্নদোষ, শয্যায় প্রস্রাব ও প্রস্রাবের জ্বালা-যন্ত্রনা।

উপাদানসমূহ
যষ্টি মধু(Glycyrrhiza glabra): ০.৩০ গ্রাম
টিংকচার বেলাডোনা: ০.১০ গ্রাম
Cascara sagrada: ০.১৫ মিলি

সিরাপ জিরিয়ানে ব্যবহৃত উপাদান সমুহের ফার্মাকোলজী

১. যষ্টিমধু (Glycyrrhiza glabra): যষ্টিমধুর প্রধান অ্যালকালয়েড হচ্ছে গ্লিসারহেটিনিক এসিড, ফ্যালকনয়েড যার মধ্যে মানসিক চাপ ও ব্যাকটেরিয়া বিরোধী বৈশিষ্ট্য বিদ্যমান।
ইহা মূত্রনালী সংক্রমনে খুবই কার্যকর এবং মানসিক চাপ বিরোধী বৈশিষ্ট্য বিদ্যমান থাকায় ইহা মানসিক শক্তি বৃদ্ধি করে স্বপ্নদোষ স্বাভাবিক রাখতে সহায়তা করে।
২. কাসকারা সাগরাডা (Cascara sagrada): কাসকারা সাগরাডার প্রধান রাসায়নিক উপাদান হচ্ছে ক্যাসকেরসাইড, এট্রোপিন, এনথ্রোকুইনোন যা, কেথার্টিক প্রক্রিয়ায় অন্ত্রের পেশী সংকোচন বৃদ্ধি করে মুভমেন্ট ও মলত্যাগ স্বাভাবিক রাখে।

জিরিয়ান সিরাপ ও ক্যাপসুলের কাজ কি খাওয়ার নিয়ম।


ফলে এটি সহজেই বীর্য তারল্য রোধ করে। তাছাড়াও ইহা মূত্র নালীর ক্ষত নিরাময়ে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখে।
৩. টিংকচার বেলাডোনা (Tincture belladonna): টিংকচার বেলাডোনার মধ্যে রয়েছে এট্রোপিন, হাইয়োস্সিয়ামিন যা অন্ত্র, মূত্রথলি ও পেটের পেশী সংকোচন-প্রসারণ নিয়ন্ত্রন করে; যার ফলে এটি সহজেই স্বপ্নদোষ, শয্যায় প্রস্রাব করা নিয়ন্ত্রন করে। তাছাড়াও ইহা মূত্র নালীর ক্ষত ও মানসিক অবসাদে খুবই কার্যকর।

জিরিয়ান সিরাপ খাওয়ার নিয়ম

১০-১৫ মিলি (২-৩ চা চামচ) দৈনিক ২-৩ বার। অথবা চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী সেব্য।


magmil syrup খাওয়ার নিয়ম

magmil syrup শিশুদের এবং প্রাপ্তবয়স্কদের মাঝে মাঝে কোষ্ঠকাঠিন্য চিকিৎসার জন্য স্বল্পমেয়াদি ভিক্তিতে ব্যবহার করা হয় ম্যাগমিল সিরাপে লাক্সাটিভ নামক একটি উপাদান আছে যা মলের সাথে জল ধরে রাখতে সাহায্য করে
নিচে ম্যাগমিল সিরাপ খাওয়ার নিয়ম দেওয়া হলো
কোষ্ঠকাঠিন্যের জন্যে:
প্রাপ্তবয়স্কদের জন্যে দিনে ২ থেকে ৪ চামচ ভরা পেটে।
শিশুদের জন্যে দিনে ১ থেকে ২ চামচ ভরা পেটে।

গ্যাসের জন্যে:
প্রাপ্তবয়স্কদের জন্যে ১ থেকে ৩ চামচ দিনে চার বার

magmil syrup খাওয়ার নিয়ম




জিরিয়ান সিরাপের দাম

একটি ২০০ মিলি জিরিয়ান সিরাপের দাম ১০০ টাকা


পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া: কোন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া বা অন্য ঔষধের সাথে মিশ্র প্রতিক্রিয়া পরিলক্ষিত হয় না।

বিরূপ প্রতিক্রিয়া: ইউনানী ক্যাপসুল জিরিয়ান এ তেমন কোন বিরূপ প্রতিক্রিয়া জানা যায়নি, তবে এর যে কোন উপাদান এর প্রতি সংবেদনশীল রোগীদের জন্য প্রতিক্রিয়া দেখা যেতে পারে।

গর্ভাবস্থায় স্তন্যদানকালে: গর্ভাবস্থা এবং স্তন্যদান সম্পর্কে কোন তথ্য পাওয়া যায়নি।

সংরক্ষন : আলো থেকে দূরে ঠান্ডা ও শুষ্ক স্থানে রাখুন। শিশুদের নাগালের বাইরে রাখুন।

Previous Post